Home » সীমান্তবাসীর সুরক্ষায় মানবিক উদ্যোগ জওয়ানদের,  করোনার টেস্ট ও ওষুধ বিতরণ

সীমান্তবাসীর সুরক্ষায় মানবিক উদ্যোগ জওয়ানদের,  করোনার টেস্ট ও ওষুধ বিতরণ

সময় কলকাতা ডেস্কঃ  ইতিমধ্যেই দেশে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৩ লাখের গণ্ডি পেরিয়েছে।পাশাপাশি বাংলায়ও কোভিড পজিটিভিটি রেট প্রায় ৯.৫৩ শতাংশের কাছাকাছি। উওর ২৪ পরগনার বসিরহাট মহকুমার সীমান্তবর্তী স্বরূপনগর ব্লকেও বাড়তি করোনা ও ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা চিন্তা বাড়াচ্ছে স্বাথ্যদপ্তরের। উওর ২৪ পরগনার বসিরহাট মহকুমার ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী গ্রামগুলিকে কোভিড মুক্ত করার উদ্যোগ নিল  সীমান্তরক্ষী বাহিনী।

বিএসএফের ১১২নং ব্যাটালিয়নের জওয়ানরা ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী আমুদিয়া, হাকিমপুর, নিত্যানন্দকাঠি ও তারালির মতো গ্রাম গুলির কয়েক হাজার মানুষকে বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরিষেবা দেওয়ার উদ্যোগ নিলেন। আধাসেনারা বিনামূল্যে চালাচ্ছেন আরটি-পিসিআর টেস্ট। পাশাপাশি, বিতরণ করছেন করোনা প্রতিরোধের ওষুধও।করোনার নয়া স্ট্রেন ওমিক্রনে সব থেকে বেশি সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বাচ্চাদের। । তাই শিশুদের হাতে মাস্ক ও স্যানিটাইজার দেওয়ার প্রক্রিয়া চালু করেছে বিএসএফ।

স্থানীয়বাসিন্দারা জানান,“বিএসএফ জওয়ানরা আমাদের সঙ্গে খুব ভালো ব্যবহার করেন। মহামারীর সময় তারা নিজেরাই রান্না করে গ্রামবাসীদের পেটভরে খাইয়েছেন। তারা আমাদের গ্রামের মা, বোনেদের সন্মান করার পাশাপাশি আমাদের সুরক্ষার বিষয়েও সবসময় তৎপর থাকে।”“আমরা পেটের ভাত জোগাড় করতে হিমশিম খাচ্ছি। সেখানে রোগের চিকিৎসা করাবো কোথা থেকে। উনারা  বিনামূল্যে আমাদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও সমস্ত রোগের ওষুধ বিনামূল্যে দিলেন। ওনারা আমাদের কাছে ভগবান।”


বিএসএফ আধিকারিক চন্দ্রশেখর বলেন,“বিএসএফ শুধু সীমান্ত পাহারা দেয় না সমাজেরও কাজ করে। আমরা  গ্রামবাসীদের সব সময় সুস্থ দেখতে চাই। তাই করোনা, ওমিক্রন সব পরিস্থিতিতেই বিএসএফ গোটা সীমান্তবাসীদের বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও ওষুধ দিচ্ছে। উদ্দেশ্য একটাই যাতে তারা সুস্থ জীবন যাপন করতে পারে।”

About Post Author