Home » দেশের তৈরী ভ্যাক্সিনের মতই দেশের বাজেটের দিকে তাকিয়ে সারা বিশ্ব, দাবী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির

দেশের তৈরী ভ্যাক্সিনের মতই দেশের বাজেটের দিকে তাকিয়ে সারা বিশ্ব, দাবী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির

সময় কলকাতাঃ আগামীকাল সংসদে পেশ হবে এবছরের সাধারণ বাজেট।করোনা অতিমারির নিস্ক্রমনের এই সময় আই এম এফ বিশ্বব্যাঙ্ক ও রেটিং সংস্থা গুলি সারা বিশ্বের আর্থিক বৃদ্ধির গড় নিয়ে নানান সময় নানান অভিমত প্রকাশ করে চলেছে। সর্বশেষ অনুমানে বিশ্বের তাবড় বড় অর্থনীতির দেশগুলি আর্থিক বৃদ্ধি আগের প্রকাশিত গড় থেকে কমেছে।সেই নিরিখে ভারতের গড় বৃদ্ধি তারা কমিয়েছে ৯ শতাংশের  আশেপাশে এই বৃদ্ধির গড় থাকবে বলে মত আই এম এফ-এর। আর ভারতকে নিয়ে আইএমএফ-এর এই ভবিষ্যৎ বাণীর দিকে তাকিয়ে সারা বিশ্ব। কারন এই মূহুর্তে ভারতই এক মাত্র দেশ, যার অর্থনীতি কি না ৯ শতাংশের আশেপাশে বৃদ্ধি পাবে। আই এম এফ এর মতে বাকি দেশগুলির বৃদ্ধি ভারতের থেকে কম থাকবে।এমন কি চিন, জাপান আমেরিকার বৃদ্ধি কে হার মানিয়ে এগিয়ে যাবে ভারত।তাই বাজেট অধিবেশনের আগের দিন সংসদ ভবনের সামনে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাংবাদিক সম্মেলনে ঘোষণা, বিশ্ব তাকিয়ে আছে এই দেশের বাজেটের দিকে। তাই বাজেট অধিবেশনে খোলা মনে আলোচনা চান তিনি।এইদিন সংসদে বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। রাষ্ট্রপতির দাবি দেশে ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করে অর্থের লেনদেন বেড়েছে।দেশের মহিলারা আর্থিক সমৃদ্ধির সুযোগ আগের তুলনায় বেশী পাচ্ছে।গ্রামীন এলাকায় পৌছেছে ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থা।

গত দু বছর ধরে করোনা অতিমারির কারনে মূল্য বৃদ্ধি সরকারে মাথা ব্যথার অন্যতম কারন। একই সঙ্গে দেশে ও আন্তর্জাতিক বাজারে পেট্রো পন্যের মূল্য বৃদ্ধিকে কি ভাবে সামাল দেয় সরকার সেই দিকে  তাকিয়ে আছেন সবাই।

তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, বিকল্প শক্তি ও জ্বালানির দিকে জোর দেওয়া হবে এবারের বাজেট।ইতিমধ্যে ভারতবর্ষকে কার্বোন নিউট্রাল দেশ হিসাবে বিশ্বের কাছে হাজির করাতে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে মোদী সরকার।অন্য দিকে আন্তর্জাতিক বাজারে পেট্রো পন্যের দাম বৃদ্ধির কারনে ও দেশের অর্থনীতি জোরদার করতে বিদ্যুৎ, হাইড্রোজেন ও ইথানল নির্ভর পরিবহন ব্যবস্থার দিকে নতুন দিশা থাকতে পারে এই বাজেটে। সামনে পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। তার মাঝেই বাজেট। আর অন্যদিকে সদ্য কৃষি বিল প্রত্যাহারের পর কেন্দ্র কৃষি ও কৃষকের স্বার্থ রক্ষা করতে বাজেটে বেশ কিছু ব্যবস্থা রাখবে বলে মত অর্থনীতি বিদদের।

এইদিন রাষ্ট্রপতি তাঁর ভাষনে বলেন দেশ করোনা তৃতীয় ঢেউ এর সঙ্গে যুজছে।তবে করোনা অতিমারিতে দেশের কেউই অভূক্ত ছিলেন না জানান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। একদিকে কৃষকের আয় বৃদ্ধি করা, অন্যদিকে মূল্য বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণে রাখাই, এবারের বাজেটের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। সেই সঙ্গে আত্মনির্ভর ভারত তৈরীর জন্যও বাজেটে শিল্পের জন্য থাকতে পারে দিশা। এই সাধারণ বাজেটের একটি অংশ থাকে রেল বাজেটও।সেই ক্ষেত্রে রেল পরিকাঠামো বৃদ্ধি উপর জোর দিতে পারেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সিতারমণ ।তবে বেশী সংখ্যায় নতুন রুটে ট্রেন নাও চালাতে পারেন তিনি অনুমান বিশেষজ্ঞদের।তবে দেশের অর্থনীতিকে ঘোষণামত পাঁচ ট্রিলিয়নে নিয়ে যেতে পরিকাঠামো ক্ষেত্রকে পাখির চোখ করা হবে এই বাজেটে দাবী বিশেষজ্ঞদের।তবে বাজেট মানে ট্যাক্সের একটা বিন্যাস ।সেই বিন্যাসে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সিতারমণ কি ধরনের অপারেশন করেন সেই দিকেই তাকিয়ে শেয়ার বাজারও।

About Post Author